Saturday, November 03, 2007

জিলা না জেলা?

বাংলার জেলা আরবির জ়িলা থেকে ব্যুৎপন্ন। আরবিতে বানান (ضلع, জ়িলা', ẓilaʻ), অর্থ, পাঁজর, এবং সে থেকে দিক। উর্দুতেও ضلع। হিন্দিতে जिला বা ज़िला। জন টমসন প্ল্যাট‌্স-এর উর্দু, ধ্রুপদী হিন্দি এবং ইংরেজি অভিধানে রোমক হরফে ẓilaʻ বা zila‘, অর্থ দিক, অংশ, (প্রদেশের) বিভাগ, জেলা, (বইয়ের পাতায় ছাপার) কলাম। Concise Oxford Dictionary আর Chamber's-এ zillah। হবসন-জবসনে zilla, তবে খুব বেশি একটা চোখে পড়ে না। বছর পঁচিশেক আগে জিলা কথাটা বেশ প্রচলিত ছিল, এখনও আছে গুটি কয়েক জায়গায়, যেমন জিলা স্কুলের নামে, কয়েক জায়গায় জিলা পরিষদ ভবনেও তাই লেখা থাকত। এখন প্রায় সব জায়গায় জেলা হয়ে গেছে। অনেক ক্ষেত্রে ইশকুলগুলিকেও জেলা স্কুল বলা হয়।

বাংলায় সাধারণত আরবি শব্দ ফারসি এবং উর্দুর মাধ্যমে ই পরিবর্তিত হয়ে এ হিসেবে দেখা দেয়, যেমন, নিজ়ারত থেকে নেজ়ারত। তবে উর্দু অভিধান ফ'রহঙ্গ-ই-রব্বানী-তে উচ্চারণ দেওয়া আছে জিলা। তারপরও উচ্চারণজনিত আলস্যের কারণে উঁচু স্বর ই একটু নেমে গিয়ে মধ্য এ-য় ঠেকেছে। বাংলা উচ্চারণের এটিই কি ধর্ম? ইংরেজিতে শব্দটির উচ্চারণে তেমন পরিবর্তন না হলেও, বাংলাদেশে অন্তত বানানটির একটি ক্ষেত্রে পরিবর্তন হয়েছে গেল দশ বছরে। আগে লেখা হত upazilla, এখনও লেখা হয়; তবে অনেক ক্ষেত্রে তা পাল্টে upazila হয়ে গেছে।

2 comments:

শামীম said...

ভাষা তো বিবর্তিত হবেই ... ...

তবে উৎস জেনে ভালো লাগল।

hussainuzzaman.ব্লগস্পট.কম

dibyajyoti said...

বাংলায় স্বরসঙ্গতির নিয়মে পরের অক্ষরে "আ" (এবং প্রায়শঃ-ই "ও" বা "এ") থাকলে তার আগের অক্ষরের (বিশেষ করে শব্দের আদিতে) "ই" বা "উ" এক ঘাট নেমে "এ" বা "ও" হয়ে যায়। এ নিয়ম খালি যে বিদেশী শব্দের ক্ষেত্রে খাটে তা নয়, খাঁটি বাংলা শব্দের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য। তাই আমরা বলি "আমি লিখি, সে লিখুক", কিন্তু "সে লেখে, আমার লেখা, তুমি লেখো"। "তুমি লিখো" কিন্তু এসেছে "তুমি লিখিও"-র পথ ধরে, তাই স্বরসঙ্গতির প্রভাব পড়ে নি।